নীড়পাতা সমকালীন সংবাদ বাংলাদেশ একটি দিন হোক শুধুই মায়ের

একটি দিন হোক শুধুই মায়ের

সম্ভাবনা ডেস্ক:

মে মাসের দ্বিতীয় রবিবার বিশ্বজুড়ে পালিত হয় আন্তর্জাতিক মা দিবস। সেই অনুযায়ী এবছরের মা দিবস আগামীকাল (১২ মে)। সারা বিশ্বেই নানা আয়োজনে সন্তানরা উদযাপন করেন মা দিবস। তবে অনেকেই এই দিবসের বিরোধিতা করে বলেন, মায়ের জন্য তো বছরের প্রতিটা দিন। আলাদা করে একটা দিনের কী প্রয়োজন?

কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় লিখেছেন-

আমি ভীষণ ভালবাসতাম আমার মা-কে

কখনও মুখ ফুটে বলিনি।

টিফিনের পয়সা বাঁচিয়ে

কখনও কখনও কিনে আনতাম কমলালেবু’।’

অধিকাংশ বাঙালি ছেলে-মেয়ের গল্পটাই বোধ হয় এমন। আমরা মা কে যতই ভালোবাসি না কেন, কিছুতেই কেন জানি মুখ ফুটে তাকে সে কথা বলতে পারিনা। বলতে পারিনা, মায়ের মুখটা আমাদের কত প্রিয়, কত প্রিয় তাঁর গায়ের গন্ধ। তাই মাতৃত্ব উদযাপনের জন্য একটা দিন থাকা মন্দ নয়। ভালো আমরা মা কে সারাবছরই বাসি, কিন্তু একটা দিন না হয় তাকে জানালাম যে তিনি আমাদের জীবনে কতটা প্রিয়, কতটা গুরুত্বপূর্ণ।

সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের পরের লাইনেই উঠে এসেছে, সন্তানের সামান্যতম ভালোবাসা জ্ঞাপনও একজন মা কে কতটা আনন্দিত করে। ছেলের টিফিনের পয়সা বাঁচানো কমলালেবু পেয়ে ‘-শুয়ে শুয়ে মা-র চোখ জলে ভরে উঠত’।

মা দিবসে মায়ের জন্য সামান্য কিছু করলেও দেখবেন তার চোখে মুখে খেলে যাবে অপার্থিব আনন্দ। চলুন দেখে নেওয়া যাক এবারের মা দিবসে কীভাবে চমকে দেওয়া যায়, আমাদের মায়েদের।

  • মা দিবস উদযাপনের পরিকল্পনা আগেই করে রাখুন। প্রয়োজনে, দিনটা মায়ের সাথে কাটানোর জন্য ছুটি নিতে পারেন। যারা মায়ের থেকে দূরে থাকেন, তারা মায়ের জন্য বই, পোশাক বা অন্য কোনো উপহার কিনে আগেভাগেই পাঠিয়ে দিন।
  • মায়ের জন্য করতে পারেন স্পেশাল রান্না। বয়সে ছোট যারা তারা এক্ষেত্রে বাবার সাহায্য নিতে পারে।
  • মা কে নিয়ে ঘুরতে বের হন। শপিং নিয়ে যাওয়া বা বাইরে খেতে যাওয়াই সব নয়। বড় হয়ে যাওয়ার পর পড়াশোনা বা চাকরি-বাকরির জন্য মায়ের সাথে সেভাবে সময় কাটানো হয়না আমাদের। আয়োজন করা যেতে পারে পারিবারিক পিকনিকের। মা দিবসে মায়ের সাথে সময় কাটানোই হতে পারে তার জন্য দারুণ উপহার। একসাথে বসে মুভি দেখা, রান্না করা, বই পড়া বা নিতান্তই গল্পগুজব করে কাটিয়ে দিতে পারেন দিনটা। দূরে আছেন যারা, তারা ফোন করে হলেও মায়ের সাথে কাটান বেশ কিছু একান্ত সময়।

মা দিবস

  • আমাদের মায়েরা আমাদের চোখে একেকজন সুপারম্যানের চাইতে কম নয়। ঘর আর বাইরে সামলাতে গিয়ে হিমশিম খান তারা। মা দিবসে তাই মা কে নিয়ে যেতে পারেন বিউটি স্যালোনে। স্পা মাসাজ, মেনিকিওর, পেডিকিওর, ফেসিয়াল, হেয়ার স্পা অথবা যেকোন মাসাজ প্যাকেজ নিতে পারেন মায়ের জন্য। একটা দিন হোক না মায়ের জন্য উপভোগ্য।
  • সন্তানের কথা ভাবতে গিয়ে নিজের ইচ্ছা বা শখের কথা ভুলে যান অনেক মা। আপনার মায়ের যদি এমন কোন অপূর্ণ ইচ্ছা বা শখ থাকে, মা দিবসে সেই শখ পূরণের ব্যবস্থা করতে পারেন।

মা দিবসকে অনেকেই বিশ্বায়নের প্রভাব বলে মনে করেন। ১৯০৮ সালে আমেরিকান শান্তিকর্মী আনা জার্ভিস প্রথম মা দিবস পালন করা শুরু করেন যা পরে সারা বিশ্বেই দারুণ সমাদৃত হয়। কিন্তু মাতৃত্বের উদযাপন নতুন কোন ধারণা নয়। সন্তানের জন্য মায়ের যে সীমাহীন অবদান ও ত্যাগ স্বীকার, তার প্রতি একধরণের কৃতজ্ঞতা প্রদর্শন যুগে যুগে নানা সভ্যতাতেই ছিল। যেমন- গ্রিক উৎসব ‘সিবেল’, রোমান ‘হিলারিয়া’ ও খ্রিস্টান রীতি অনুযায়ী ‘মাদারিং সানডে’র মাধ্যমে মায়ের জন্য বিশেষ একটি দিনের উদযাপন হাজার বছর ধরেই প্রচলিত। আজকের আধুনিক মা দিবস সরাসরি সেসব দিবস থেকে না আসলেও মাতৃত্বের উদযাপন আজও সার্বজনীন।

মা দিবস কতটা ব্যবসায়িক কারণে বা আধুনিকতার জন্য উদযাপন হয়, সেই বিচার না করে তাই আসুন মায়ের জন্য উৎসর্গ করি অন্তত একটি দিন। মায়ের সাথে কাটাই অমূল্য কিছু সময়। সবাইকে মা দিবসের শুভেচ্ছা।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন