নীড়পাতা সকল বিভাগ বিনোদন গর্বের একুশে চ্যানেল আই

গর্বের একুশে চ্যানেল আই

2
0
সম্ভাবনা ডেস্ক:
বাঙালির অহংকার, সম্মান ও মর্যাদার স্মারক গর্বের একুশ। এমন একটি অর্থবহ সংখ্যায় পদার্পণ করলো চ্যানেল আই। ‘হৃদয়ে বাংলাদেশ, প্রবাসেও বাংলাদেশ’ স্লোগান ধারণ করে ১৯৯৯ সালের ১লা অক্টোবর পথচলা শুরু করে এ চ্যানেল। গতকাল ছিল চ্যানেলটির ২১তম জন্মদিন। এ উপলক্ষে চ্যানেল প্রাঙ্গণ ও এর পর্দাজুড়ে ছিল বর্ণাঢ্য নানা আয়োজন। এছাড়া দেশের শীর্ষ দৈনিকগুলোতে বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হয়েছে চ্যানেলের পক্ষ থেকে। সেখানে চ্যানেল আইকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাণী দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড.হাছান মাহমুদ।

.

শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর এবং পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ। জন্মদিন উপলক্ষে প্রকাশিত ক্রোড়পত্রে লিখেছেন কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন। বরেণ্য লেখক সমরেশ মজুমদার ‘গর্বের একুশ বছরে চ্যানেল আই’ প্রকাশিত গ্রন্থের জন্য একটি বিশেষ লেখা লিখেছেন। চ্যানেল আইকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিভিন্ন অঙ্গনের বিশিষ্টজনরা। জন্মদিনের প্রথম প্রহর রাত ১২টা ০১ মিনিটে চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে তৈরি মঞ্চে বিশিষ্টজনদের সঙ্গে নিয়ে চ্যানেল আই পরিবারের সদস্যরা বর্ণাঢ্য আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে একটি দীর্ঘ কেক কাটেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইমপ্রেস গ্রুপের চেয়ারম্যান আবদুর রশিদ মজুমদার, চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, চ্যানেল আই পরিচালনা পর্ষদ সদস্য মুকিত মজুমদার ও জহির উদ্দিন মাহমুদ মামুনসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার গুণীজনরা। গতকাল সকাল ১১টায় প্রধান অতিথি ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বিশিষ্টজন ও চ্যানেল আইয়ের পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের উপস্থিতিতে কেক কেটে এবং বেলুন উড়িয়ে ২১ বছরে পদার্পণের  দিনের কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, আবুল মকসুদ, আজাদ রহমান, সাংবাদিক সাইফুল আলম ও ইনামুল হক চৌধুরী প্রমুখ।

এরপর ওয়ার্দা রিহ্যাব নৃত্য পরিবেশন করেন। এরপর ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান ডিএমপি কমিশনার মো. শফিকুল ইসলাম,  র‌্যাব ফোর্সের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের, আওয়ামী লীগ নেতা ইউসুফ হুমায়ূন, অধ্যাপক আবদুল মান্নান, নাট্যব্যক্তিত্ব কেরামত মাওলা, আবুল হায়াত, সুবর্ণা মুস্তাফা, গাজী রাকায়েত, আফসানা মিমি, গীতিকার ও চলচ্চিত্র পরিচালক গাজী মাজহারুল আনোয়ার,   চিত্রতারকা ইলিয়াস কাঞ্চন, মৌসুমী, ওমর সানী, সিমলা, সংগীতশিল্পী ফকীর আলমগীর, নাট্য পরিচালক সালাহউদ্দিন লাভলু, এসএ হক অলিক, ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন চন্দনা মজুমদার, কিরণ চন্দ্র রায়, মো. খুরশীদ আলম, ফেরদৌস ওয়াহিদ, ফেরদৌস আরা, অবস্‌কিউর, জলের গান, এসআই টুটুলের ধ্রুবতারা, ফিডব্যাক, বাদশা বুলবুল, দিনাত জাহান মুন্নী, দিঠি আনোয়ার এবং চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ, ক্ষুদে গানরাজ, বাংলার গানের শিল্পীরা। বিকাল ৫টা পর্যন্ত অনুষ্ঠানটি সরাসরি সমপ্রচার করেছে চ্যানেল আই। সন্ধ্যা ৭টায় চ্যানেল প্রাঙ্গণে বর্ণাঢ্য আয়োজনে কেক কেটে ও আতশবাজির মধ্য দিয়ে শেষ হয় চ্যানেল আইয়ের ২১ বছরে পদার্পণের অনুষ্ঠানমালা।

সূত্রঃ মানবজমিন।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন