নীড়পাতা বাংলাদেশ ঢাকা ঢাকায় জালালাবাদবাসীর নির্বাচন ও কিছু কথা

ঢাকায় জালালাবাদবাসীর নির্বাচন ও কিছু কথা

88
0

সম্ভাবনা ডেস্ক:

মিজান ইমরান : টিলা আর হাওরবেষ্টিত জল–ঝরনার লোকায়ত ঐতিহ্য ও সমৃদ্ধ সংস্কৃতির জনপদ সিলেট। বৃহত্তর সিলেটের ইতিহাস, ঐতিহ্য, শিক্ষা, সংস্কৃতি, অর্থনীতি, পর্যটন, পরিবেশ, মুক্তিযুদ্ধে সিলেটবাসীর অবদান, বাংলাদেশের উন্নয়নে সিলেটি প্রবাসীদের ভূমিকা, প্রাকৃতিক দূর্যোগ দূর্ভিক্ষে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাড়ানো সহ নানান মানবিক কাজ নিরলসভাবে করে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী সংগঠন জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকা। ঢাকায় বসবাসরত সিলেটিদেরকে সুসংগঠিত, ঐক্যবদ্ধভাবে একে অন্যের সুখে দুঃখে পাশে দাড়ানোর প্রত্যয় নিয়ে ১৯৪৮ সালে ঘটিত হয়েছিল ঐতিহ্যবাহী সংগঠনটি। সিলেটি কৃর্ত্তিমান গুণীজনদের বলিষ্ট নেতৃত্বে আজ যার কর্ম ব্যাপ্তি পৃথিবীজুড়ে ছড়িয়ে থাকা সিলেটবাসীর সেতু বন্ধনে। বৃহত্তর সিলেটের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ভাবে সমাদৃত রাজনীতিবিদ, শিল্পী,কবি-সাহিত্যিক, নাট্যকার, শিল্প উদ্যোক্তা সহ সকল গুণীজনেরা নাড়ীর টানে মিলিত হন ঢাকার জালালাবাদের আঙ্গিনায়। জালালাবাদ যেন সৌহার্দ্যের এক উন্মুক্ত সোপান। তাই বৃহত্তর সিলেটবাসীর কাছে জালালাবাদ এক আবেগ আর ভরসার নাম। কিন্তু অবাক করার বিষয় হচ্ছে, বৃহত্তর সিলেটবাসীর আবেগ আর ভরসার প্রিয় সংগঠনটিতে কিছু ক্যুচক্রী মহলের চোখ পড়েছে…! বহুল প্রত্যাশিত জালালাবাদ এসোসিয়েশন এর আগামি ২৭ অক্টোবরের নির্বাচন বানচাল করার জন্য তারা আদালত পাড়ায় দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন। রীট করেছেন আদালতে! যার রিট মামলা নং ১২৪৪৮/১৮ ! এখন প্রশ্ন হচ্ছে নির্বাচনের বিপক্ষে রীট কেন করতে হবে? আপনাদের স্বার্থই বা কি ? আপনারা কি নির্বাচন চাচ্ছেন না? নাকি ভেবে নিয়েছেন আপনাদের নিশ্চিত পরাজয়। অভিযোগ ওঠেছে অনেকে জালালাবাদকে নিজেদের ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান করে রাখতে চান….! উনারা কারা? অনেক ভোটার আছেন যাদেরকে ফোন করলে তারা বলেন জালালাবাদ কি, এটা কোথায়? তারা আবার অনেকেই সিলেটি কথাও বলতে পারেন না! এসব লোক কিভাবে ভোটার হলেন? পরিশেষে একজন আজীবন সদস্য হিসেবে বলতে চাই, সৌহার্দ্য আর সম্পৃতির এই বন্ধনে ফাটল ধরাতে গিয়ে যদি নিজেদের মুখোশ উন্মোচিত হয়ে যায়, তখন জালালাবাদ বাসীর প্রত্যাখান কিভাবে বরন করে নিবেন তার হিস্যাও করে রাখুন।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন