নীড়পাতা সমকালীন সংবাদ রাজনীতি তৃণমূলের কোন নেতাকর্মীকেই সেভাবে চেনেন না নৌকার টিকেট পাওয়া ডা. মুনসুর

তৃণমূলের কোন নেতাকর্মীকেই সেভাবে চেনেন না নৌকার টিকেট পাওয়া ডা. মুনসুর

94
0

রাজশাহী প্রতিনিধি:

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নানা জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ৫৬ রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনে নৌকার মাঝি হয়েছেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনস্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. মনসুর রহমান। ডা. মুনসুর মনোনয় পাওয়ার পরথেকেই জনমনে নানা ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। অনেকেই বলছেন পুঠিয়া দুর্গাপুরের তৃণমূলের কোন নেতাকর্মীর সাথেই চেনা জানা নেই হঠাৎ করেই নৌকার টিকেট পাওয়া ডা. ‍মুনসুর রহমানের। শুধু তাই নয় খোদ উপজেলা আওমীলীগের সাধারণ সম্পাদক সহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের সাথে তার কালে ভাদ্রে দেখা হলেও কথা হয়নি বলে জানিয়েছেন একাধিক নেতা। কেন তিনি মনোনয়ন পেলেন এটা নিয়েও তৃণমূলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

নেতাকর্মী বলছেন পুঠিয়া দুর্গাপুরে কয়টি ইউনিয়ন সেটাও মনে হয় ভালো করে জানেন না ডাক্তার মুনসুর। দুই উপজেলা মিলে ১১৩টি ওয়ার্ডের আওমীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগের যেসকল নেতাকর্মী রয়েছেন তাদের চিনতেই ডা. মুনসুরের এক বছর লেগে যাবে তাহলে তিনি নির্বাচন করবেন কিভাবে। বিএনপির মনোনয়ন পাওয়া পুঠিয়া-দুর্গাপুরের দুইবারের নির্বাচিত সাবেক এমপি এ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফার সাথে কতটুকু ফাইট দিতে পারবেন ডাঃ মুনসুর এটা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। এজন্য অনেকেই মনোনয়ন পরিবর্তনের জন্য দলীয় সভানেত্রী জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

এদিকে ডা. মুনসুর রহমান নৌকার টিকেট পাওয়ায় স্যোসাল মিডিয়ায় নানা ধরনের হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে। সবুজ নামের পুঠিয়ার এক ফেসবুক ব্যবহার কারী এক পোষ্টে লিখেছেন, “ এবার নাকি পুঠিয়া-দূর্গাপুরে বাঘের সাথে টিকটিকি লড়াই করবে”। আবু হানিফ নামে আরেক জন লিখেছেন, “বাঘ-সিংহের লড়াই হল কিন্তু শিয়াল পেল মুরগী”

দলীয় কোন্দলের কারণে পুঠিয়া-দুর্গাপুর আসনে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে নানা ধরনের বিভক্তির সৃষ্টি হওয়ার ফলে আওমীলীগ থেকে বর্তমান এমপি আবদুল ওয়াদুদ দারার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে এ আসনে আওয়ামী লীগের আরো ৯ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী দলীয় মনোনয়ন যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। যাচাই বাছাই শেষে প্রধানমন্ত্রী যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেটা অনেকেই মেনে নিলেও তৃণমূলে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

অনেক নেতাকর্মীরা বলেছেন, নৌকা এবার আসনটা হাতছাড়া করল। সময় এখনো আছে দলীয় নেত্রী যদি সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে তাহলে নৌকার যে জোয়ার আছে তা অব্যাহত থাকবে।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন