নীড়পাতা বাংলাদেশ সিলেট দৃশ্যমান বিয়ানীবাজার পৌরশহরের কলেজ রোডের উন্নয়ন কাজ ।। কমবে দুর্ভোগ

দৃশ্যমান বিয়ানীবাজার পৌরশহরের কলেজ রোডের উন্নয়ন কাজ ।। কমবে দুর্ভোগ

65
0

সম্ভাবনা ডেস্ক:

বিয়ানীবাজার পৌরসভাসহ উপজেলার মাথিউরা, তিলপাড়া ও কুড়ারবাজার ইউনিয়নের প্রায় অর্ধলক্ষাধিক মানুষের প্রাণের দাবি ছিল কলেজ রোডের (প্রমথ নাথ দাস সড়ক) দীর্ঘস্থায়ী সংস্কার ও প্রশস্তকরণ কাজ। অবশেষে দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর বিয়ানীবাজার পৌরসভার প্রাণকেন্দ্র কলেজ রোডের সংস্কার ও প্রশস্তকরণ কাজ দৃশ্যমান হয়েছে। ফলে দুর্ভোগ কমছে উপজেলার তিন ইউনিয়নের মানুষ ও পৌরবাসীর।
পৌরসভা সূত্রে জানা যায়, সংস্কার ও সম্প্রসারণ কাজ সম্পূর্ণরূপে শেষ হলে কলেজ রোডের প্রস্থ বৃদ্ধি পেয়ে প্রায় ৩০ ফুট হবে। রাস্তাটির সাড়ে ৭’শ ফুট দৈর্ঘের আরসিসি ঢালাই কাজে ব্যয় হচ্ছে ৪৯ লাখ ৩৯ হাজার টাকা। এছাড়া সড়কের উভয় পার্শ্বে তিন ফুট প্রস্থের ড্রেন নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে প্রায় ৩০ লাখ টাকা।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, সড়কটি সংস্কার ও প্রস্থকরণ কাজ শুরু করার পূর্বে ড্রেন নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়। পরে গত ৬ এপ্রিল সড়কটির উভয় পাশ থেকে প্রসারিত করে আরসিসি ঢালাই কাজ শুরু হয়। ইতিমধ্যে সড়কটির সাড়ে ৭’শ ফুট দৈর্ঘ্যের আরসিসি ঢালাই কাজ শেষ হয়েছে। তবে সংস্কারাধীন ড্রেনের ওপর স্ল্যাব (ঢাকনা) বসানো হয়নি এখনো।
জানা যায়, মাত্র কয়েক দিন আগেও বিয়ানীবাজার পৌরসভাসহ মাথিউরা, তিলপাড়া, কুড়ারবাজার এবং পাশের গোলাপগঞ্জ উপজেলার বুধবারীবাজার ও বাদেপাশা ইউনিয়নের প্রায় দুই লক্ষাধিক মানুষের যোগাযোগের ক্ষেত্রে একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে এ সড়কটি। সড়কটিতে প্রস্থে অনেক সরু ছিল। তাছাড়া সড়কের মধ্যে বড় বড় খানাখন্দ ও গর্তে পানি জমে থেকে বেহাল দশায় যানবাহন ও জনগণের যাতায়াতে ব্যাপক ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। বর্তমানে এ সড়কটি সংস্কার ও প্রশস্ত হওয়ায় দীর্ঘদিনের কাঙ্খিত স্বপ্নপূরণ হয়েছে।
এ ব্যাপারে বিয়ানীবাজার পৌর মেয়র মোঃ আব্দুস শুকুর বলেন, আমি মেয়র নির্বাচিত হওয়ার আগেই পৌরবাসীকে যেসব কথা দিয়েছিলাম, সে কথাগুলো বাস্তবায়নের লক্ষ্য নিয়েই আমি কাজ করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, পৌরশহরের সকল শ্রেণিপেশার মানুষকে যাতায়াত সুবিধা দিতে ও পৌরশহরকে নান্দনিক রুপ দিতে কাজ করে যাচ্ছি। সাধারণ জনগণের সুবিধার্থে সরু রাস্তাটি আরও প্রশস্থ করা হয়েছে। পৌরবাসী সহযোগিতায় কাজটি সম্পন্ন করতে পেরেছি সেজন্য পৌরবাসীর প্রতি রইলো আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
এসময় তিনি আরোও বলেন, সড়কটির উভয় পাশের ড্রেনের ওপর স্ল্যাব (ঢাকনা) বসানো হবে। আশা করছি রমজানের পূর্বে রাস্তাটি যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন