নীড়পাতা খেলাধুলা বিকেএসপিতেই সাকিবের বিকল্প?

বিকেএসপিতেই সাকিবের বিকল্প?

2
0

সম্ভাবনা ডেস্ক:

মোহামেডানের সুপার লিগে ওঠার স্বপ্নে বড় একটা ঝাঁকুনি দিয়ে গেলেন ১৭ বছরের কিশোর হাসান মুরাদ। বিকেএসপির ছাত্র বাঁহাতি স্পিনের মায়াবী ফাঁদে যাদের উইকেট ফেললেন তারা সবাই প্রতিষ্ঠিত ব্যাটসম্যান। ১০ ওভারে ৩০ রান দিয়ে সাজঘরে পাঠিয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল, অভিষেক মিত্র, ইরফান শুক্কুর, নাদিফ চৌধুরীকে।

চার উইকেট শিকারে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয়া বোলিংয়ের পর এক উইকেটে হেরে ফতুল্লা থেকে বিকেএসপিগামী বাসে চড়তে হয়েছে মুরাদকে। জয়ের খুব কাছে গিয়ে হার যন্ত্রণা দিলেও প্রিমিয়ার লিগে নিজের পারফরম্যান্সের দিকে তাকালে বড় স্বপ্নর ডালপালা মেলারই কথা কক্সবাজার থেকে উঠে আসা এ স্পিন প্রতিভার।

ঘরোয়া ক্রিকেটের শীর্ষ লিগে প্রথমবার নেমে ‍মুরাদ ১১ ম্যাচে ২০ উইকেট তুলে পেছনে ফেলেছেন দেশের সেরা সেরা সব স্পিনারকে। সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীর তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকা এ স্পিনারের উপরের দুটি নাম- ফরহাদ রেজা (২৭ উইকেট) ও রবিউল হক (২২ উইকেট)। তারা দুজনই পেসার।

নবীন এ স্পিনারের নামের পাশে ২০ উইকেট যতটা না চোখ আটকাবে, কিপটে বোলিংয়ের হিসেবটা আরও বেশি প্রলুব্ধ করবে। ইকোনমি মাত্র ৩.৬৬। ১০৪ ওভার বোলিং করে দিয়েছেন ৩৮১ রান। এবারের লিগে তার চেয়ে মাত্র দুটি বল বেশি ছুঁড়েছেন খেলাঘরের পেসার রবিউল।

শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে আবাহনীর ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমানকে বোল্ড করে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে প্রথম সাফল্য পান মুরাদ। অভিষেক ম্যাচে নেন দুই উইকেট। ধারাবাহিকতা ধরে রেখে আরাফাত সানি, আব্দুর রাজ্জাক, তাইজুল ইসলাম, এনামুল হক জুনিয়র, নাবিল সামাদদের মতো বাঁহাতি স্পিনারকে ফেলেছেন অনেক পেছনে।

বৃহস্পতিবার ফতুল্লায় মোহামেডানের সঙ্গে ম্যাচটা একাই জমিয়ে তোলেন মুরাদ। ২৫০ রানের লক্ষ্য ছুঁতে গিয়ে ওপেনিং জুটিতেই সাদা-কালোরা তুলে ফেলে ৭৭। ইরফান শুক্কুরকে (৪১) আউট করে প্রথম আঘাত হানেন এ বাঁহাতি স্পিনার। মোহামেডান যখন শক্ত অবস্থানে, জোড়া আঘাতে ম্যাচের চেহারা বদলে দেন বিকেএসপির এ কিশোর। চার বলের ব্যবধানে আশরাফুল (৩) ও নাদিফকে (০) আউট করে।

নিজের দশম ওভারে দারুণ খেলতে থাকা অভিষেক মিত্রকে (৬৫) আউট করে মোহামেডানকে বিপদে ফেলেন মুরাদ। শেষদিকে প্রতিপক্ষ দলের বোলাররা এদিন ‘ব্যাটসম্যান’ হয়ে উঠতে না পারলে প্রিমিয়ার লিগে এ মৌসুমের দৌড় শেষই হয়ে যেত মোহামেডানের।

সাকিব ‍আল হাসানের নামের শেষ অংশ দিয়ে মুরাদের নামের শুরু। দুটো নামেই আছে ‘হাসান’। সাকিব বিকেএসপির আলো-বাতাসে বেড়ে উঠে এখন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তবে মুরাদের প্রতিভা শুধুই স্পিন বোলিংয়ে।

প্রিমিয়ার লিগের সাফল্য ধরে মুরাদ নিজেকে নিয়ে যেতে চান অনেক দূর, ‘দুর্ভাগ্য এত কাছে গিয়ে ম্যাচটা হেরে গেলাম। লিগে মোটামুটি ভালো বোলিং করেছি। আমি অনেকক্ষণ ধরে এক জায়গায় বল করতে পারি। এটাই হয়ত আমাকে ভালো করতে সাহায্য করেছে। সামনে যেন আরও ভালো করতে পারি সে লক্ষ্য থাকবে আমার।’

সমুদ্রনগরী কক্সবাজারে বেড়ে ওঠা উঠতি ক্রিকেটার মুরাদের। ক্রিকেটের প্রতি অগাধ ভালোবাসা ও পরিশ্রম তাকে এনে দিয়েছে আদর্শ স্থান বিকেএসপিতে। পেশাদার ক্রিকেটে প্রথম সুযোগেই আলো ছড়িয়ে সম্ভাবনার পথকে অনেক প্রশস্ত করলেন।

সূত্রঃ চ্যানেল আই অনলাইন।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন