নীড়পাতা অন্যান্য খবর বিয়ানীবাজারের স্বর্ণালী দিনের ফুটবল। যারা পেছন থেকে সাহস যোগাতেন – আবুল কাশেম

বিয়ানীবাজারের স্বর্ণালী দিনের ফুটবল। যারা পেছন থেকে সাহস যোগাতেন – আবুল কাশেম

বিয়ানীবাজারের স্বর্ণালী দিনের ফুটবল।
যারা পেছন থেকে সাহস যোগাতেন।

আশি,নব্বই দশকে বিয়ানীবাজারের ফুটবলের স্বর্ণালী দিনের ফুটবলারদের কথা অনেকের লিখনীতে উঠে এসেছে।কিন্তু সেসময় যারা আমাদেরকে অর্থ দিয়ে,শ্রম দিয়ে আমাদের মনোবল বৃদ্ধি করতেন উনাদের কথা হয়তো কালের বিবর্তনে একদিন হারিয়ে যাবে।আমার ফুটবল জীবনে যাদেরকে দেখেছি বিভিন্নভাবে ফুটবলারদের উৎসাহিত করতে,কেউ জার্সি দিয়ে কেউ টাকা দিয়ে বা কেউ সাহস জোগিয়ে মনোবল বৃদ্ধি করতে।স্মৃতিতে যাদের কথা আছে উনাদের কথা পরবর্তি প্রজন্মের জন্য তুলে ধরার চেষ্টা।

জনাব আব্দুর রাজ্জাক(ঘুঙ্গাদিয়া),মরহুম জনাব এম এ আজিজ(কসবা),মরহুম জনাব মুজম্মিল আলী মাষ্টার(লাউতা),মরহুম জনাব কুতিল মিয়া(শ্রীধরা),জনাব সুনাম উদ্দিন(বৈরাগীবাজার),মরহুম জনাব আব্দুল মতলিব চেয়ারম্যান(মুল্লাপুর),মরহুম জনাব আব্দুস সালাম(দাসগ্রাম),মরহুম জনাব শেখ ওয়াহিদুর রহমান(খাসাড়ীপাড়া),মরহুম জনাব মোস্তফা আল্লামা(দেউলগ্রাম),জনাব আব্দুল আহাদ কলা মিয়া(কুড়ারবাজার),মরহুম জনাব ইসলাম উদ্দিন(বৈরাগীবাজার),মরহুম শ্রদ্ধেয় আ স ম আব্দুল মান্নান স্যার,শ্রদ্ধেয় ফয়জুল আলম(আলম স্যার)(পন্ডিত পাড়া),মরহুম জনাব আলহাজ্ব ছাদ উদ্দিন(নয়াগ্রাম),জনাব আজমল মিয়া(ঘুঙ্গাদিয়া),মরহুম জনাব তাজ উদ্দিন(শ্রীধরা),জনাব মতিন মিয়া(কসবা),জনাব মতিন মিয়া(খাসা),মরহুম জনাব নুরুল হক(শ্রীধরা),মরহুম জনাব গৌছ উদ্দিন এমপি(চন্দরপুর),নজমুল ইসলাম নাজ(আইডিয়াল/চন্দগ্রাম),ফখরুল ইসলাম(পারাবত/পাতন),মরহুম জনাব আবুল কালাম বাবুল(পশ্চিম নয়াগ্রাম),মরহুম জনাব তোতা মিয়া পুতুল(শ্রীধরা)।

শ্রদ্ধেয় এই মানুষগুলো আমাদের জন্য,বিয়ানীবাজারের ফুটবলের জন্য যা করেছেন তা কি করে ভুলবো।এই মানুষগুলো শুধুই দিয়েছেন বিনিময়ে কিছু চাননি বা পাননি।আমরা কি পারিনা উপজেলা ক্রীড়া সংস্হার মাধ্যমে উনাদেরকে একটু সম্মাননা দিতে?
ভালো থাকুন আপনারা ইহকাল ও পরকালে।

আবুল কাশেম-
প্রাক্তন ফুটবলার,লন্ডন।
৪ নভেম্বর ২০২০।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন