নীড়পাতা খেলাধুলা মেসি, রোনালদো ও ফন ডাইক- ইউরোপ সেরা কে?

মেসি, রোনালদো ও ফন ডাইক- ইউরোপ সেরা কে?

4
0

সম্ভাবনা ডেস্ক:

গতবার ইউরোপের বর্ষসেরা হয়ে লুকা মদরিচ ভেঙেছিলেন লিওনেল মেসি ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর দাপট। এই প্রজন্মের দুই বিশ্ব সেরা খেলোয়াড়কে এবার চ্যালেঞ্জ জানাতে সংক্ষিপ্ত তালিকায় আছেন ভার্জিল ফন ডাইক। এই তিনজনের মধ্যে কে পাচ্ছেন ইউরোপের বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের মর্যাদা, সেটা জানা যাবে আজ বৃহস্পতিবার রাত ১০টায়।

একই দিন চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বের ড্র অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া ইউরোপের বর্ষসেরা মেয়ে ফুটবলারের পুরস্কারও দেওয়া হবে, যেখানে হবে লুসি ব্রোঞ্জ, অ্যাডা হেগারবার্গ ও আমানদিন হেনরির লড়াই। মোনাকোয় হতে যাওয়া এই অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করবে সনি টেন ২।

গত এক বছরের পারফরম্যান্সে উয়েফা বর্ষসেরার দৌড়ে কে কতটা ভালো ছিলেন, সেটাই তুলে ধরেছে বিবিসি স্পোর্ট ও উয়েফা।

এই লড়াইয়ে মেসি ও রোনালদোর প্রতিদ্বন্দ্বিতা বেশ পুরোনো। উয়েফার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের সংক্ষিপ্ত তালিকায় তাদের দুজনের নাম দেখা যায়নি, এমনটা খুব কমই হয়েছে। ২০১১ সাল থেকে চালু হওয়া এই অ্যাওয়ার্ড রোনালদো জিতেছেন রেকর্ড তিনবার (২০১৪, ২০১৬, ২০১৭), আর মেসি দুইবার (২০১১ ও ২০১৫)।

আরেকটি চমৎকার মৌসুম পার করে আবারও এই স্বীকৃতি পাওয়ার দৌড়ে মেসি-রোনালদো। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড বার্সেলোনাকে জিতিয়েছেন লা লিগা, আর জুভেন্টাসের জার্সিতে রোনালদো পেয়েছেন প্রথম সিরি ‘এ’ ট্রফির স্বাদ।

অবশ্য পারফরম্যান্স নিয়ে দুজনকে তুলনা করলে বেশ এগিয়ে মেসি। ২০১৮ সালে ৩১ জুলাই থেকে এই বছরের ৩১ জুলাই পর্যন্ত পারফরম্যান্সকে এই পুরস্কারের জন্য বিবেচনা করা হয়েছে। এই সময়ে মেসি ক্লাব ও দেশের হয়ে করেছেন ৫৪ গোল, আর রোনালদোর ৩১টি। মিনিটের আনুপাতিক হারেও বেশ এগিয়ে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। প্রতি ৮৬ মিনিটে একটি করে গোল করেছেন মেসি, আর ১২৭ মিনিটে একটি করে রোনালদো।

প্রথম ডিফেন্ডার হিসেবে উয়েফার বর্ষসেরা হয়ে রেকর্ড গড়ার অপেক্ষায় পিএফএ খেলোয়াড়দের ভোটে বর্ষসেরা হওয়া ফন ডাইক। লিভারপুলের এই ডিফেন্ডার গত মৌসুমে জিতেছেন চ্যাম্পিয়নস লিগ, প্রিমিয়ার লিগে রানার্স আপ। এই ডাচ ডিফেন্ডার গত মৌসুমে ক্লাব ও দেশের হয়ে খেলেছেন ৫৯ ম্যাচ। ৯ গোল করেছেন, বানিয়ে দিয়েছেন চারটি। লিভারপুলের হয়ে অন্য যে কোনও আউটফিল্ড খেলোয়াড়ের চেয়ে বেশি মিনিট (৪,৪৬৫) মাঠে ছিলেন।

সব ধরনের প্রতিযোগিতায় লিভারপুলের রক্ষণের প্রাণ ছিলেন তিনি। গত লিগ মৌসুমে অন্য যে কোনও দলের চেয়ে কম গোল (২২) হজম করেছে রেডরা। গত শনিবার আর্সেনালের নিকোলাস পেপে ৫০ লিগ ম্যাচে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ড্রিবল করে এই ডাচ ডিফেন্ডারকে পরাস্ত করেন। সব মিলিয়ে রক্ষণে চমৎকার নৈপুণ্য দিয়ে এবার মেসি-রোনালদোকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলতে পারেন ফন ডাইক।

সংখ্যায় তিন প্রার্থীর গত মৌসুম-

.

” onclick=”return false;” href=”http://cdn.banglatribune.com/contents/cache/images/800x0x1/uploads/media/2019/08/29/6a7ffb58c3718e72fbd262539a04422c-5d67786a878c2.jpg” title=”” id=”media_1″ class=”jw_media_holder media_image jwMediaContent aligncenter”>ক্যারিয়ারের দশম লা লিগা ট্রফি পেয়েছেন মেসিক্যারিয়ারের দশম লা লিগা ট্রফি পেয়েছেন মেসিলিওনেল মেসি

অর্জন: স্প্যানিশ লিগ, স্প্যানিশ সুপার কাপ, কোপা দেল রে রানার্স আপ, উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ শীর্ষ গোলদাতা, ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শ্যু।

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ

ম্যাচ: ১০

গোল: ১২

অ্যাসিস্ট: ৩

লা লিগা

ম্যাচ: ৩৪

গোল: ৩৬

অ্যাসিস্ট: ১৫

.

” onclick=”return false;” href=”http://cdn.banglatribune.com/contents/cache/images/800x0x1/uploads/media/2019/08/29/bd5edcbfe50f74c50caf967d79b22673-5d6778670f264.jpg” title=”” id=”media_2″ class=”jw_media_holder media_image jwMediaContent aligncenter”>প্রথম সিরি ‘এ’ ট্রফি হাতে রোনালদোপ্রথম সিরি ‘এ’ ট্রফি হাতে রোনালদোক্রিস্তিয়ানো রোনালদো

অর্জন: উয়েফা নেশনস লিগ, নেশনস লিগ ফাইনালের শীর্ষ গোলদাতা, সিরি ‘এ’, ইতালিয়ান সুপার কাপ, ব্যালন ডি’অর রানার আপ।

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ

ম্যাচ: ৯

গোল: ৬

অ্যাসিস্ট: ২

সিরি ‘এ’

ম্যাচ: ৩১

গোল: ২১

অ্যাসিস্ট: ৮

.

” onclick=”return false;” href=”http://cdn.banglatribune.com/contents/cache/images/800x0x1/uploads/media/2019/08/29/bd62652b0d1d44bb9d7af603309ff42a-5d67786732193.jpg” title=”” id=”media_3″ class=”jw_media_holder media_image jwMediaContent aligncenter”>চ্যাম্পিয়নস লিগ ট্রফির স্বাদ পেলেন ফন ডাইকচ্যাম্পিয়নস লিগ ট্রফির স্বাদ পেলেন ফন ডাইকভার্জিল ফন ডাইক

অর্জন: উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ, উয়েফা নেশনস লিগ রানার্স আপ, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ রানার্স আপ, পিএফএ খেলোয়াড়দের ভোটে বর্ষসেরা।

চ্যাম্পিয়নস লিগ

ম্যাচ: ১২

গোল: ২

অ্যাসিস্ট: ২

প্রিমিয়ার লিগ

ম্যাচ: ৩৮

গোল: ৪

অ্যাসিস্ট: ২

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন