নীড়পাতা প্রবাসের সেতুবন্ধন “শিখছি” – কাজী আরিফুর রহমান

“শিখছি” – কাজী আরিফুর রহমান

“শিখছি”

পুস্তক পাঠেই সার্বিক জ্ঞান অর্জন হয় না। পারিপার্শ্বিক থেকেও আমরা অনেক কিছু শিখছি। তাই আমাদের তৈরি করতে হবে শিক্ষণীয় পরিবেশ। যে পরিবেশ আমাদের বিচার বুদ্ধিতে মেধাবী, জ্ঞানী ও সচেতন মানুষ করে তুলবে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক কিছু শিখার আছে। শিক্ষা আপনাকে চিন্তাশীল, বিনয়ী, বুদ্ধিমান করে তুলে। আপনি পরিবেশ থেকে অনেক কিছুই প্রতিদিন শিখছেন। আপনার এ শিক্ষা আপনি তাৎক্ষনিক না বুঝতে পারলেও পর্যায়ক্রমে বুঝতে পারবেন।

বই পড়েই যদি সব শিখা যেতো, তাহলে আপনি ডিগ্রী নিয়েই অনেক শিক্ষিত হয়ে যেতেন। আপনি ডিগ্রী নিলেই যে অনেক শিক্ষিত তা কিন্তু নয়। পৃথিবীতে অনেক মানুষ আছেন, যারা পারিপার্শ্বিক থেকে শিখেছেন, তারা অনেক বিদ্বান ব্যক্তি থেকেও অনেক জ্ঞানী।

আপনি লক্ষ্য করে দেখবেন, ছোট থেকে এ পর্যন্ত আপনি পুস্তকের পাশাপাশি যে সকল জায়গায় ভ্রমণ করেছেন, যে সকল মানুষের সাথে মিশেছেন, তাদের সবার কাছ থেকে কিছু না কিছু শিখেছেন। যে কোন বিপদ আপনাকে কিছু না কিছু শিক্ষা দিয়েছে। আমরা স্ব-স্ব ক্ষেত্রে নিজেকে অনেক বড় মনে করি। কিন্তু আপনি কি জানেন, আমরা সবাই পারস্পারিক নির্ভরশীল। সামাজিকভাবে আপনি নিজেকে যত বড়ই মনে করেন? এ সমাজই আপনাকে একদিন তুচ্ছ্য তাচ্ছিল্ল করতে পারে।

যুক্তরাজ্যে পড়তে করতে এসে, অনেক কিছুই শিখা হয়েছে। আপনি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ দেখলে অবাক হয়ে যাবেন, এতো বৈচিত্র পৃথিবীর। যুক্তরাজ্যে যে বিষয়গুলো আপনার ভালো লাগবেঃ ১। যাতায়াত সুবিধা, ২। স্বাস্থ্য সেবা, ৩। শিক্ষা ব্যাবস্থা, ৪। নিরাপত্তা, ৫। চাকুরীর সুবিধা, ৬। নির্ভেজাল স্বাস্থ্যসম্মত খাবার, ৭। মানসম্মত জীবন যাপন, ৮। এখানে উল্লেখ্য করারমত নেই কোন দুর্যোগ, ৯। নেই পানি/ বিদ্যুৎ যাবার কোন ঝামেলা, ১০। অনলাইনে যোগাযোগ খুব শক্তিশালী, ১১। পারস্পরিক সম্মানবোধ, ১২। নেই রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা, ১৩। সবাই সচেতন, ১৪। সিদ্ধান্ত নিতে গবেষণাকে খুব গুরুত্ব দেয়, ১৫। যান্ত্রিক কৃষি ব্যবস্থা, ১৬। সুপাশপ এ সব বাজার, ১৭। সময়ানুবর্তিতা ইত্যাদি।

শিক্ষা, জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত চলমান প্রক্রিয়া। তাই আমার কাছে মনে হয়, আমি একজন ছাত্র এবং প্রতিদিনই শিখছি। তবে, এ অর্জিত শিক্ষাকে মানুষের কল্যাণে লাগানোই এখন মূল উদ্দেশ্য।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন