নীড়পাতা সমকালীন সংবাদ বাংলাদেশ সিলেটে জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস পালন

সিলেটে জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস পালন

7
0

সম্ভাবনা ডেস্ক:

প্রাকৃতিক গ্যাস অফুরন্ত নয়। তাই এর সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে জ্বালানি সাশ্রয়ের ওপর সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদান করে সিলেটে পালিত হয়েছে জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস-২০১৯। এ উপলক্ষে শুক্রবার সকালে সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেড এর প্রধান কার্যালয়স্থ অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেড এর মহাব্যবস্থাপক (হিসাব ও অর্থ) খন্দকার ইকরামুল কবীরের সভাপতিত্বে জ্বালানী নিরাপত্তা দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী আলী ইকবাল মো. নুরুল্লাহ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কোম্পানীর মহাব্যবস্থাপক (এলপিএম/টিএস) প্রকৌশলী রওনাকুল ইসলাম।

কোম্পানির পরিকল্পনা ডিপার্টমেন্টের ব্যবস্থাপক মো. হেলাল উদ্দিনের সঞ্চলানায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মহাব্যবস্থাপক (অপারেশন) প্রকৌশলী মো. আব্দুল কাদির, মহাব্যবস্থাপক (পিএন্ডডি) প্রকৌশলী মো. হারুনুর রশীদ মোল্লাহ, মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন/কোম্পানী সচিব) মো. শওকত আলম কাদরী, মহাব্যবস্থাপক ও প্রকল্প পরিচালক মো. শোয়েব, কর্মচারী ইউনিয়নের (সিবিএ) সাধারণ সম্পাদক আবু ইউসুফ মিয়া ও কর্মচারী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুস সোবাহান প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রকৌশলী আলী ইকবাল মো. নুরুল্লাহ বলেন, ‘১৯৭৫ সালের ৯ আগস্ট বঙ্গবন্ধু বহুজাতিক কোম্পানি শেল ওয়েলের কাছ থেকে তিতাস, রশিদপুর, হবিগঞ্জ, বাখরাবাদ এবং কৈলাসটিলা গ্যাস ক্ষেত্র কিনে নেন। ওই সময়ে ৪ দশমিক ৫ মিলিয়ন পাউন্ডে গ্যাসক্ষেত্রগুলো কিনে রাষ্ট্রীয় মালিকানা প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার পর জাতীয় অগ্রগতির লক্ষ্যে যে সব দূরদর্শী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিলেন তার মধ্যে জাতীয় জ্বালানির নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিকরণ ছিল অন্যতম। দীর্ঘ পরিক্রমায় তাঁরই সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার সরকারের আমলে ২০১০ সালে এক পরিপত্রে ৯ আগস্টকে জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। এরপর থেকে প্রতিবছর এই দিন সরকার জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস হিসেবে পালন করে আসছে।’

সভার শুরুতে ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের নিহত সদস্যদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন ও আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

সূত্রঃ সিলেট ভিউ।

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন