নীড়পাতা ফিচারড স্বাধিকার আন্দোলনের প্রথম শহীদ বিয়ানীবাজারের কৃতি সন্তান শহীদ মনু মিয়ার স্মৃতির প্রতি...

স্বাধিকার আন্দোলনের প্রথম শহীদ বিয়ানীবাজারের কৃতি সন্তান শহীদ মনু মিয়ার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাই – মোঃ নাজিম উদ্দিন

স্বাধিকার আন্দোলনের প্রথম শহীদ বিয়ানী বাজারের কৃতি সন্তান শহীদ মনু মিয়ার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাইঃ
••••••••••••••••••••••••••••••••••••
ফখরুল দৌলা ওরফে মনু মিয়া।ইতিহাসের পাতায় যিনি মনু মিয়া নামেই সর্বাধিক পরিচিত।বাড়ি বিয়ানী বাজার উপজেলার নয়াগ্রামে যার আদি নিবাস একই উপজেলার বড়দেশ গ্রামে ছিলো।১৯৬৬ সালের আজকের এই দিনে অধিকার আদায়ের লক্ষে ৬ দফা আন্দোলনের মিছিলে তৎকালিন সৈরশাসক আইয়ুব শাহর পুলিশের গুলিতে শহীদ হয়েছিলেন।তার আত্নদানের পর বাঙালি জাতি আরও ফুসে উঠেছিলো স্বাধীনতার লক্ষে।উল্লেখ্য তিনি হলেন দেশের স্বাধিকার আন্দোলনের প্রথম শহীদ।তাই আজ ৭ই জুন বাঙালির জাতীয় জীবনে এক ঐতিহাসিক দিন।কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্য গত ২/৩ বছর পূর্বে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের উদ্দ্যোগে তার বসত বাড়িতে একটি স্মৃতি সৌধ নির্মান করা হলেও স্বাধিকার আন্দোলনের আজ ৫০ বছর পরও সরকারী ভাবে শহীদ মনু মিয়ার স্মৃতি রক্ষার্থে তার জন্মভুমিতে কোন স্মৃতিচিহ্ন প্রতিষ্টা করা হয়নি।বিয়ানী বাজারের সূর্যসন্তান শহীদ মনু মিয়া ছিলেন আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রেরনার উৎস।সেই ছোট বেলা থেকে শুনে আসছি দেশের স্বাধিকার আন্দোলনের প্রথম শহীদ আমাদের বিয়ানী বাজারের কৃতি সন্তান শহীদ মনু মিয়া।কিন্তু বর্তমান প্রজন্ম উনার সম্পর্কে কিছুই জানে না।এজন্য বর্তমান প্রজন্ম দায়ী নয় বরং দায়ী তারাই যারা বিভিন্ন সময়ে দায়িত্বে থেকেও উনার সম্পর্কে জানানোর কোন ব্যবস্হা বা উদ্দ্যোগ গ্রহন করেননি।আজকের এই দিনে প্রত্যাশা করি উনার স্মৃতি রক্ষার পাশাপাশি বর্তমান প্রজন্মকে উনার সম্পর্কে জানানোর বা তুলে ধরার ব্যবস্হা করা হবে।আজ আমরা এই স্বাধীন দেশে যে যে অবস্হানে আছি তার পিছনে এই শহীদ মনু মিয়াদের মতো স্বাধীনচেতা মানুষের অবদান অনস্বীকার্য়।আমরা যেন দেশের এই বীর শহীদের স্মৃতি রক্ষার্থে অকৃতজ্ঞ না হই।আজকের এই দিনে গভীর শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় তাকে স্মরন করি।মহান আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করি আল্লাহ যেন তাকে পরপারে শান্তিতে রাখেন।
” মোঃ নাজিম উদ্দিন “

রিপ্লাই করুন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন